Home কাভার গার্ল পূর্ণিমার ফিরে আসা

পূর্ণিমার ফিরে আসা

1674
0
SHARE

দীর্ঘ বিরতির পর আবার বড়ো পর্দায় ফিরছেন জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী পূর্ণিমা। প্রয়াত অভিনেতা মান্নার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান কৃতাঞ্জলি চলচ্চিত্র প্রযোজিত ‘জ্যাম’ ছবির মাধ্যমে পূর্ণিমা ফিরছেন চলচ্চিত্রে। ছবিটির শুটিং আগামী অক্টোবর মাসে শুরু হওয়ার কথা। এই ছবির পরপরই আরো একটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হলেন পূর্ণিমা। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের লেখা উপন্যাস ‘গাঙচিল’ ছবিতে অভিনয় করবেন তিনি। দুটি ছবিই পরিচালনা করবেন নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল।  বিস্তারিত লিখেছেন শেখ সেলিম …

 

সংসারে ব্যস্ত থাকায় দীর্ঘদিন চলচ্চিত্র অঙ্গন থেকে দূরে ছিলেন এক সময়ের ক্রেজ অভিনয়শিল্পী পূর্ণিমা। ছবিতে অভিনয় না করলেও দর্শকের কথা মাথায় রেখে ছোটপর্দায় কাজ করেছেন তিনি। পাশাপাশি দেশ বিদেশে বিভিন্ন স্টেজ শোতে অংশ নিয়েছেন পূর্ণিমা। কখনো অভিনেত্রী, কখনো উপস্থাপিকা কখনো আবার নেচে মুগ্ধ করেছেন দর্শকের। মূলত সন্তান ও স্বামীকে সময় দেওয়ার জন্য দীর্ঘদিন চলচ্চিত্র অঙ্গন থেকে সরে ছিলেন, তা ছাড়া ভালো গল্প না পাওয়ার কারণেও দীর্ঘদিন কাজ করেননি তিনি। এখন সন্তান একটু বড়ো হওয়ায় স্বামীর সঙ্গে আলাপ করেই এই অঙ্গনে ফিরছেন পূর্ণিমা। বর্তমানে পূর্ণিমার উপস্থাপনায় আরটিভিতে প্রচার হচ্ছে ‘পূর্ণিমা’ শিরোনামের একটি অনুষ্ঠান। নিয়মিত এই অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করে দর্শকের প্রশংসা কুড়িয়েছেন। এরই মধ্যে অনেক ছবিতে অভিনয় করার সুযোগ এলেও নানা কারণে করা হয়ে ওঠেনি। অবশেষে ‘কৃতাঞ্জলি’ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ‘জ্যাম’ ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হলেন তিনি। কৃতাঞ্জলি প্রতিষ্ঠানটিও দীর্ঘ ১০ বছর যাবৎ বন্ধ রয়েছে। এটি চালু করলেন প্রয়াত অভিনেতা মান্নার স্ত্রী শেলী মান্না। সেখান থেকেই নির্মিত হবে ‘জ্যাম’ ছবিটি। এই ছবির কিছুদিন পরই আরো একটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হলেন পূর্ণিমা। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের লেখা উপন্যাস ‘গাঙচিল’ ছবিতে অভিনয় করবেন তিনি। দুটি ছবিই পরিচালনা করবেন নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল। ‘জ্যাম’ ছবির শুটিং হওয়ার কথা অক্টোবর থেকে, আর ‘গাঙচিল’ ছবির শুটিং শুরু হবে ডিসেম্বর থেকে। ‘গাঙচিল’ ছবিতে অভিনয় প্রসঙ্গে পূর্ণিমা বলেন, পাঁচ বছর বিরতি দিয়ে আবার চলচ্চিত্রে ফিরছি। আমি চাইছিলাম এই ধরনের গল্পে কাজ করতে। ‘জ্যাম’ ছবিতে একজন নৃত্যশিল্পী ও ‘গাঙচিল’ ছবিতে একজন এনজিও কর্মীর চরিত্রে অভিনয় করব। আশা করছি ছবিটি দর্শকেরা ভালো ভাবে গ্রহণ করবেন। নোয়াখালীর একটি চর ও স্থানীয় মানুষের জীবনের নানা বাঁকের গল্প নিয়ে উপন্যাসটি রচিত। সেখানেই নায়িকা চরিত্রে রয়েছেন এক এনজিও কর্মী।  পূর্ণিমা এবং ‘কৃতাঞ্জলি’র একসঙ্গে আবার ফিরে আসা, কেমন লাগছে জানতে চাইলে. পূর্ণিমা বলেন মান্না ভাইয়ের প্রতি একটা দুর্বলতা তো রয়েছেই, ভাবির প্রতিও একটা টান রয়েছে, ভাবি যখন বললেন তখন আর না করতে পারলাম না, তা ছাড়া গল্পটা মনের মতো, সবকিছু মিলিয়ে রাজি হয়ে গেলাম। ছবিতে অভিনয় থেকে দূরে থাকার কারণ জানতে চাইলে পূর্ণিমা বলেন, একে তো ভালো গল্প পাচ্ছিলাম না তা ছাড়া আমার সন্তান ছোট ছিল। সন্তান একটু বড়ো হওয়ায় এখন মনে হচ্ছে আমি ছবিতে সময় দিতে পারব। এখন সব কিছু ঠিক হয়েছে বলেই বড়ো পর্দায় ফিরছি। নিয়মিত কাজ করব কি না সেটাও নির্ভর করবে সময়ের ওপর। যদি ভালো গল্প, ভালো নির্মাতার কাজ পাই তা হলে নিয়মিত করতেও পারি।

কাজ আর সংসার সম্পর্কে পূর্ণিমা বলেন, সংসার করছি, সংসার নিয়ে অনেক সুখী। সংসারে সময় দেওয়ার পর বাকি সময়টাতে মিডিয়ায় কাজ করছি। আমার প্রতিটি বিষয়ই আমার স্বামী সাপোর্ট করছে। আমাদের বোঝাপড়াটা খুবই ভালো। যারা আমাদের সংসার নিয়ে গুজব ছড়াচ্ছেন, তাদের কাছে অনুরোধ থাকবে, না জেনে গুজব ছড়াবেন না। আমাদের জন্য সবাই দোয়া করবেন। এক সঙ্গে দুটি ছবিতে কাজ করতে যাচ্ছেন, ছোট পর্দায় নিয়মিত কাজ করবেন কি ? আমি খুব বেশি কাজ করি না, মাসে একদিন পূর্ণিমার শুটিং হয়, বিশেষ দিবসে ভালো গল্প পেলে নাটক-টেলিফিল্মে কাজ করা হয়। ছবিতে কাজ করার পাশাপাশি ভালো গল্প পেলে অবশ্যয়ই ছোটপর্দায় কাজ করব।

সম্প্রতি পূর্ণিমা গিয়েছিলেন ‘যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসের একটি অনুষ্ঠানে অংশ নিতে। সেখানে বাংলাদেশ-আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন অব লস অ্যাঞ্জেলেস [বিএএএলএ] আয়োজিত আনন্দমেলা অনুষ্ঠান কর্তৃপক্ষ তাকে “লস অ্যাঞ্জেলেস কংগ্রেসনাল রিকগনিশন” সনদ দিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসম্যান জুডি শু পূর্ণিমার হাতে ‘লস অ্যাঞ্জেলেস কংগ্রেসনাল রিকগনিশন’ সনদ তুলে দেন। একই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের ব্যান্ড প্রমিথিউসের বিপ্লব, নৃত্যশিল্পী প্রিয়া ডায়েস, আরটিভির প্রধান নির্বাহী আশিকুর রহমানকে এই সনদ দেওয়া হয়। সেখানে তিনি ২৭ জুলাই হলিউডে যান, কেমন লাগলো হলিউড ? পূর্ণিমা বলেন, ‘হলিউডে আসাটা অনেকের কাছে স্বপ্ন। একজন চলচ্চিত্রকর্মী হিসেবে এখানে আসতে পারা আমার জন্যও স্বপ্নের। সেখানে আধা ঘণ্টার মতো ছিলাম। সবকিছু ঘুরে দেখেছি। যতটা সময় ছিলাম, খুব ভালো লেগেছে। হলিউডের দ্য ওয়াক অব ফেম ঘুরে বেশি ভালো  লেগেছে। পূর্ণিমা এর আগেও যখন হলিউড গিয়েছিলেন, তখন নিজের মতো করে ঘুরে বেড়িয়েছেন। এবার সঙ্গী হিসেবে ছিলেন আরিফিন শুভ। তাই সময়টা তাঁদের দারুণ কেটেছে। ১ আগস্ট তিনি ঢাকায় ফেরেন। এসেই আবার ব্যস্ত হয়ে পড়েন নতুন কাজে।

 

পেছনে ফিরে দেখা

পূর্ণিমার প্রথম ছবি ছিল ‘শত্রæ ঘায়েল’। ছবিতে শিশুশিল্পী হিসেবে তার অভিষেক হয়। নায়িকা হিসেবে যাত্রা শুরু হয় জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত ‘এ জীবন তোমার আমার’ [১৯৯৮] ছবির মাধ্যমে। সেসময়ে পূর্ণিমা সবেমাত্র নবম শ্রেণির ছাত্র। প্রথম ছবিতে তার সহশিল্পী ছিলেন রিয়াজ। প্রথম ছবিতেই প্রশংসা কুড়ান পূর্ণিমা, যদিও ছবিটি আর একটি ছবির কাছে দৌড় প্রতিযোগিতায় পেছিয়ে ছিল। ছবিটিতে সাফল্য না-পাওয়ায় এক বছর সময় নেন নতুন ছবিতে কাজ করতে। এরপর দুটি ছবি মুক্তি পায় তার, এই দুটি ছবিও তেমন সাড়া ফেলতে পারেনি। শহীদুল ইসলাম খোকনের ‘যোদ্ধা’ ছবির মাধ্যমে ফিরে আসেন পূর্ণিমা। খোকনের ‘যোদ্ধা’ এবং বাদশা ভাই পরিচালিত ‘কাল্লু মামা’ হিট হয়। এরপর পূর্ণিমাকে আর  পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। ২০১০ সালে ঘোষণা দিয়েই ফাহাদের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন পূর্ণিমা। বিয়ের পরে চলচ্চিত্রকে বিদায় জানিয়ে জাপানে স্থায়ী হবেন এমন ঘোষণা দিলেও পরে ফিরে আসেন। ২০১৪ সালের ১৩ এপ্রিল একটি কন্যা সন্তানের মা হন তিনি। চলচ্চিত্রে ভালো অভিনয়ের স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১০ সালে ‘ওরা আমাকে ভালো হতে দিল না’ ছবির জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান পূর্ণিমা। হ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here